ফেসবুক এড থেকে ১৫% ভ্যাট নিবে বাংলাদেশ সরকার

Vat in Facebook Ad

ফেসবুক বিজ্ঞাপনে দিতে হবে কর 

ফেসবুকের উপর বাংলাদেশ সরকারের নিয়ন্ত্রণ বেড়েই চলেছে। ফেসবুকও আমাদের দেশের সরকারের কার্যক্রমে  নানাভাবে সাহায্য করছে। সরকারের নানা আদেশ সঠিকভাবেই পালন করছে ফেসবুক।

২০১৯সালেই বাংলাদেশ সরকার গুগল ও ফেসবুকে বিজ্ঞাপন দিতে ১৫% ভ্যাট নেওয়ার নির্দেশ দেয়। তবে সরকার ঘোষণা করলেও ফেসবুক থেকে তেমন ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়নি। কিন্তু ২৬মার্চ, ২০২০সালে অর্থাৎ আজকে ফেসবুক থেকে অফিশিয়ালি ১৫% ভ্যাট বা রাজস্ব সম্পর্কে ঘোষণা করা হয়। ফেসবুক থেকে বলা হয়, বাংলাদেশি সকল প্রতিষ্ঠান যারা ফেসবুক এড ব্যবহার করে তাদের উপর এই শর্ত প্রযোজ্য হবে।

ফেসবুক এড কি?

ফেসবুক এড হলো ফেসবুকে বিজ্ঞাপন দেওয়ার একটি প্রক্রিয়া। অনেকে এটিকে ফেসবুক বুস্ট বা প্রমোট করাও বলে থাকে। মূলত কোন প্রতিষ্ঠান ফেসবুক এড ব্যবহার করে সেই প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন ফেসবুকে দিতে পারে। ফেসবুক এড দেওয়ার জন্য মূলত প্রতিষ্ঠানটির একটি বিজনেস একাউন্ট থাকতে হয়।

কাদেরকে ১৫% ভ্যাট দিতে হবে?

যেসকল প্রতিষ্ঠান বাংলাদেশে প্রতিষ্ঠিত সেসকল প্রতিষ্ঠানের উপর এই নিয়ম কার্যকর হবে। তবে ফেসবুক থেকে জানানো হয় সকল প্রতিষ্ঠানের উপর ১৫% ভ্যাট কার্যকর হবেনা। বরং, যেসকল বাংলাদেশি প্রতিষ্ঠান তাদের বিজনেস একাউন্টে বিজনেস আইডেন্টিফিকেশন নাম্বার (Business Identification Number) বা বিন (BIN) যুক্ত করবে না তাদের উপরই ১৫% অতিরিক্ত চার্জ কাটা হবে।  

কবে থেকে ১৫% ভ্যাট কার্যকর হবে?

ফেসবুক জানাচ্ছে তারা বাংলাদেশ ভ্যাটের জন্য রেজিষ্ট্রেশন করছে। তাই এই রেজিষ্ট্রেশন কার্যক্রম শেষ হলেই ১৫% ভ্যাট বা কর নেয়া কার্যকর হবে। তখন পুনরায় ফেসবুক সেটি ঘোষণা করবে।

কিভাবে বিন (BIN) ফেসবুকে যুক্ত করতে হবে?


Facebook Ad Account Setting

ফেসবুকে বিন যুক্ত করার জন্য ফেসবুকের এড একাউন্ট সেটিংসে যেতে হবে (Faebook AD Account Settings)। সেখান থেকে নিচের দিকে Business Country এর পরের অপশনে "Tax Id Number" (ট্যাক্স আইডি নাম্বার) দেওয়ার ইনপুট বক্স থাকবে। সেখানেই বিন সংখ্যা দিয়ে "Save Changes" এ ক্লিক করতে হবে।

কিভাবে বিন (BIN) পাওয়া যাবে?

বর্তমানে বিন সংখ্যা হলো ১৩ডিজিটের একটি সংখ্যা যেটি পূর্বে ছিলো ৯ডিজিটের, এটি মূলত বিজনেস আইডেন্টিফিকেশন নাম্বার। অনলাইন থেকেই বিন সংগ্রহ করা যায়। বিন পাওয়ার জন্য সঠিক তথ্য দিয়ে vat.org.bd তে রেজিস্ট্রেশন করতে হবে। রেজিস্ট্রেশনের পর একাউন্ট সেটাপ করতে হবে। একাউন্ট সেটাপের পর বিন পাওয়ার জন্য আবেদন করতে হবে। আবেদন এপ্রোভ হলে ইমেইলে একটি পিডিএফ সার্টিফিকেট পাঠানো হবে। সেটিতেই বিন সংখ্যাসহ অন্যান্য তথ্য দেওয়া থাকবে। প্রয়োজন হলে সেটিকে প্রিন্ট আউট করে ব্যবহার করা যেতে পারে।

বিন পাওয়ার জন্য প্রয়োজনীয় তথ্যাবলীঃ

  1. একটি ফোন নাম্বার ও একটি ইমেইল। ফোন নাম্বার ও ইমেইল লাগবে vat.org.bd ওয়েবসাইটে রেজিস্ট্রেশন করার জন্য। তাছাড়া, ইমেইলেই সর্বশেষ বিন (ভ্যাট) সার্টিফিকেট প্রেরণ করা হবে।
  2. জাতীয় পরিচয়পত্র বা ন্যাশনাল আইডি কার্ড (NID) বা ভোটার আইডি কার্ড থাকতে হবে। ছবি থাকার প্রয়োজন নেই। আইডি কার্ডের নাম্বার বা সংখ্যা জানা থাকলেই হবে।
  3.  প্রতিষ্ঠানের ট্রেড লাইসেন্স নাম্বার (Trade License Number)। 
  4. ই-টিন (e-Tin)নাম্বার বা Taxpayer's Identification Number সংগ্রহ করতে হবে। 
  5. প্রতিষ্ঠানের ঠিকানা জানতে হবে। পোস্টাল কোড সহ। 
  6. একটি ব্যাংক একাউন্ট থাকতে হবে। আর সে একাউন্টের তথ্যাবলি জানা থাকতে হবে। যেমনঃ ব্যাংকের নাম ও শাখা,একাউন্ট নাম, একাউন্ট নাম্বার।
  7.  এক বছরের ব্যাংকের লেনদেন। (যে ব্যাংক একাউন্ট দিয়েছেন সে একাউন্টের)
  8. এসকল তথ্যের পাশাপাশি কিছু প্রয়োজনীয় কাগজের ছবি বা স্ক্যান করা কপি এটাচমেন্ট হিসেবে যুক্ত করতে হবে। যেমনঃ আইডি কার্ড, ব্যাংক একাউন্ট স্টেটমেন্ট, টিন (TIN) সার্টিফিকেট, ট্রেড লাইসেন্স সার্টিফিকেট ইত্যাদি। 

সহজে বুঝতে ভিডিওটি দেখে নিতে পারেন। ভিডিও ক্রেডিটঃ  Creative IT    


ফেসবুক থেকে ১৫% কর নেওয়ার কারণে সরকার হয়তো লাভবান হবে, তবে অনেক অনলাইন ভিত্তিক প্রতিষ্ঠান বা ব্যক্তিগত প্রতিষ্ঠানগুলো ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে। কেননা, আমার মতো অনেকেই ব্যক্তিগত প্রতিষ্ঠান বা ব্যক্তিগত পেইজকে ফেসবুকে প্রমোট করে থাকে যাদের পক্ষে বিন নাম্বার সংগ্রহ করা সম্ভব নয়।

অন্যান্য উন্নত দেশগুলোতে পূর্বে থেকেই ফেসবুক এড থেকে কর নেওয়ার নিয়ম রয়েছে। আর বাংলাদেশও এখন ফেসবুকে এই নিয়ম কার্যকর করতে চলেছে।

Post a Comment

0 Comments